bdnews24.com - Home http://bangla.bdnews24.com/ The RSS feed of bdnews24.com en Bangladesh News 24 Hours Ltd. 2017-09-13 09:34:43.0 2017-09-13 09:34:43.0 Home customGroupedContent 1 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1397544 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2017-09-21 12:53:30.0 2017-09-21 14:34:04.0 সোয়া চার লাখ রোহিঙ্গা, এসেছে ২৭০ টন চাল-আটা সোয়া ৪ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে, মিলেছে ২৭০ টন চাল-আটা রাখাইনে সহিংসতা শুরুর পর এ পর্যন্ত সোয়া চার লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন; তাদের জন্য দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার সহায়তা হিসেবে ২৭০ মেট্রিক টন চাল ও আটা পাওয়ার কথা জানিয়েছে সরকার। রাখাইনে সহিংসতা শুরুর পর এ পর্যন্ত সোয়া চার লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন; তাদের জন্য দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার সহায়তা হিসেবে ২৭০ মেট্রিক টন চাল ও আটা পাওয়ার কথা জানিয়েছে সরকার। false http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1397544.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/a-rohingya-refugee-woman-s-forehead-bleeds-as-she-jostles-for-aid-in-cox-s-bazar.jpg/ALTERNATES/w300/A+Rohingya+refugee+woman%27s+forehead+bleeds+as+she+jostles+for+aid+in+Cox%27s+Bazar.JPG
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরেন।  

তিনি বলেন, গত ২৫ অগাস্ট থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশে আসা ৪ লাখ ২৪ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে বর্তমানে ১৪টি ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫ হাজার ৫৭৫ জনের বায়োমেট্রিক নিবন্ধন ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিশ্রুত সহায়তা থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ২৫০ মেট্রিক টন চাল এবং ২০ টন আটা সরকারের হাতে এসেছে।

এছাড়া বাংলাদেশ সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় ৫০০ মেট্রিক টন জিআর চাল ও নগদ ৩০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।  

রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে না যাওয়া পর্যন্ত সরকার সব ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা করবে জানিয়ে মায়া বলেন, “ইউএনএইচসিআর খাদ্য, চিকিৎসা, আশ্রয়সহ সার্বিক সব ধরনের সহায়তার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ডব্লিউএফপি আগামী চার মাস চার লাখ মানুষের খাবার সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।”

ডব্লিউএফপি ইতোমধ্যে উখিয়ার ১৪টি স্থানে ত্রাণ সামগ্রী সংরক্ষণের জন্য গুদাম নির্মাণের কাজ ‍শুরু করেছে; সেখানে তাদের ৩৬টি মেডিকেল টিম কাজ করছে।

আর বাংলাদেশের জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ক্যাম্পগুলোতে প্রতিদিন ১৪ হাজার ইউনিট (প্রতি ইউনিটে ১০০০ লিটার) খাবার পানি সরবারহ করছে। এছাড়া ১০০টি টিউবওয়েল স্থাপন ও ৫০০টি অস্থায়ী টয়লেট নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে।

এলজিইডির সঙ্গে সমন্বয় করে নতুন রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে জানিয়ে মায়া বলেন, চট্টগ্রাম থেকে ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কাছে পৌঁছে দিতে সেনাবাহিনী কাজ করছে।

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনায় পুলিশ ও বিজিবি সহায়তা দিচ্ছে জানিয়ে ত্রাণমন্ত্রী বলেন, ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে আট ঘণ্টায় ৬৪ হাজার লিটার খাবার পানি সরবারহ করতে পারে- এমন চারটি মোবাইল ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট কাজ শুরু করেছে।

মায়া বলেন, বিচ্ছিন্নভাবে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা চার লাখের বেশি মানুষকে খাদ্য, চিকিৎসা, নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় মানবিক সহায়তা দিতে একটি অস্থায়ী বাসস্থান গড়ে তোলার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কুতুপালং এলাকায় প্রায় দুই হাজার একর জমিতে ১৪টি শেড নির্মাণের কাজ চলছে।

ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে শৃঙ্খলা আনতে ১৩টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে এবং বিক্ষিপ্তভবে কেউ যাতে ত্রাণ বিতরণ না করে সে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

“রোহিঙ্গাদের বিষয়টি আমরা মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করছি। এত বিপুল সংখ্যক বিদেশি নাগরিকের আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা বাংলাদেশের জন্য কষ্টকর হলেও এ মানবিক সংকটের সময়ে সাময়িক সময়ের জন্য সীমান্তবর্তী কুতুপালং ক্যাম্পের পাশে নতুন ক্যাম্পে তাদের আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তাদের জন্য বাংলাদেশের পক্ষে সম্ভব সব ধরনরে মানবিক সহায়তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।”

ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আজারবাইজান, ইরান, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ রোহিঙ্গাদের সমর্থন দিয়েছে বলে জানান ত্রাণমন্ত্রী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা প্রতিনিয়ত স্থান পরিবর্তন করায় এবং বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করায় তাদের প্রকৃত সংখ্যা কম-বেশি হতে পারে। এছাড়া এর আগে আসা ৩৩ হাজার ৫৪২ জন নিবন্ধিত শরণার্থী উখিয়ার কুতুপালং ও টেকনাফের নয়াপাড়া ক্যাম্পে বসবাস করছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব শাহ কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রিয়াজ আহমেদ ছাড়াও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

 

]]>
1397542 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/a-rohingya-refugee-woman-s-forehead-bleeds-as-she-jostles-for-aid-in-cox-s-bazar.jpg/ALTERNATES/w300/A+Rohingya+refugee+woman%27s+forehead+bleeds+as+she+jostles+for+aid+in+Cox%27s+Bazar.JPG 1397546 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/rohinga-maya-press-ed.jpg/ALTERNATES/w300/Rohinga-Maya-Press-ed.jpg 1397543 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/rohingya-refugees-jostle-for-aid-in-cox-s-bazar.jpg/ALTERNATES/w300/Rohingya+refugees+jostle+for+aid+in+Cox%27s+Bazar.JPG 1397539 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/a-rohingya-refugee-boy-jostles-for-aid-in-cox-s-bazar.jpg/ALTERNATES/w300/A+Rohingya+refugee+boy+jostles+for+aid+in+Cox%27s+Bazar.JPG 1397540 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/a-rohingya-refugee-camp-in-cox-s-bazar-bangladesh.jpg/ALTERNATES/w300/A+Rohingya+refugee+camp+in+Cox%27s+Bazar%2C+Bangladesh.JPG 1397541 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/a-rohingya-refugee-girl-drinks-rain-water-in-a-camp-in-cox-s-bazar-bangladesh.jpg/ALTERNATES/w300/A+Rohingya+refugee+girl+drinks+rain+water+in+a+camp+in+Cox%27s+Bazar%2C+Bangladesh.JPG
2 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-bn 9945 1397494 বান্দরবান ও কক্সবাজার প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম বান্দরবান ও কক্সবাজার প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2017-09-21 10:25:40.0 2017-09-21 14:28:29.0 রোহিঙ্গাদের ত্রাণের ট্রাক খাদে, নিহত ৯ রোহিঙ্গাদের ত্রাণের ট্রাক খাদে, নিহত ৯ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব রেড ক্রসের ত্রাণ নিয়ে বান্দরবান সীমান্তের একটি ক্যাম্পে যাওয়ার পথে নাইক্ষ্যংছড়িতে সেতু ভেঙে ট্রাক খাদে পড়ে অন্তত নয় শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ত্রাণ নিয়ে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি যাওয়ার পথে রেড ক্রিসেন্টের একটি ট্রাক খাদে পড়ে অন্তত নয়জনের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১২ জন। false http://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1397494.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/bandarban-accident.jpg/ALTERNATES/w300/Bandarban-Accident.jpg
নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি তৌহিদ কবির জানান, বিজিবির চাকঢালা সীমান্ত চৌকির কাছে বড় ছনখোলায় বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – মো. মামুন (২২), মো. আব্দুল্লাহ (১৮), সৈয়দ আলম (৩০), মো. আব্দুল জলিল (৩৫), মো. আব্দুলা (২৫), সুরত আলম (৪০), আব্দুল মাবুদ (৪০), সুদর্শন বড়ুয়া (৪৫) ও মো. সুলতান আহম্মদ (৪৫)।

বান্দরবানে প্রায় ৫০ হাজার রোহিঙ্গা রয়েছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল হোসেন চৌধুরী বলেন, ট্রাকটি কক্সবাজারের উখিয়া থেকে মিয়ানমার সীমান্তের কাছে বড় ছনখোলায় রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের জন্য ত্রাণ নিয়ে যাচ্ছিল।

“পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই ছয়জন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়।”

হতাহত সবার বাড়ি নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় জানিয়ে তিনি বলেন, তারা রেড ক্রিসেন্টের ত্রাণ বিতরণ কাজে নিয়োজিত ছিলেন।

দুর্ঘটনায় আরও ১২ জন আহত হলে প্রথমে তাদের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা হাসপাতালে, পরে কয়েকজনকে নিকটস্থ কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে জানান চেয়ারম্যান তসলিম।

আহতরা হলেন –সেলিম (৩০), সৈয়দুর রহমান (৩৫), ফয়েজ (৩০), আলী হোসেন (৫০), ইউসুফ (৩৫), আবু তাহের (৩০), বাবুল (২২), জিয়াউর রহমান (১৮), জসিম (২৫), আজিজুর রহমান (৩৫), আলী আকবর (১৮) ও সুলততান (৩৫)।

এ ঘটনায় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি শোক প্রকাশ করেছে।

সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমদ মজুমদার এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত এ ঘটনার জন্য সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পর্ষদের সব সদস্য শোকাহত ও মর্মাহত।

নিহত ও আহত শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৪ অগাস্ট রাতে কয়েকটি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনাক্যাম্পে হামলার পর দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে নতুন করে দমন অভিযানে নামে।

গত প্রায় এক মাসে সোয়া চার লাখের বেশি রোহিঙ্গা নতুন করে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এর আগে আরও চার লাখের মতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসে রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৫০ হাজার রয়েছে বান্দরবানে।

]]>
1397573 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/bandarban-accident.jpg/ALTERNATES/w300/Bandarban-Accident.jpg 1397493 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/naikhkhongchori.jpg/ALTERNATES/w300/Naikhkhongchori.jpg
3 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1397529 নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2017-09-21 11:35:41.0 2017-09-21 13:32:03.0 মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিতে বাধা মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিতে বাধা মিয়ানমারের রাখাইনে ‘জাতিগত নিধন’ অভিযানের শিকার মুসলিম রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণসামগ্রী নিতে বাধা দিয়েছে একদল বৌদ্ধ বিক্ষোভকারী। মিয়ানমারের রাখাইনে ‘জাতিগত নিধন’ অভিযানের শিকার মুসলিম রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণসামগ্রী নিতে বাধা দিয়েছে একদল বৌদ্ধ বিক্ষোভকারী। false http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1397529.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/rohinga.jpg/ALTERNATES/w300/Rohinga.jpg
বুধবার রাখাইনের রাজধানী সিত্তের বন্দরে প্রায় ৫০ টন ত্রাণসামগ্রী নৌকায় বোঝাই করার সময় লাঠি ও ধাতব দণ্ড হাতে নিয়ে কয়েকশ মানুষ বাধা দেয় বলে সরকারি সূত্র উদ্ধৃত করে রয়টার্স এই খবর দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, রোহিঙ্গাদের জন্য নিয়ে যাওয়া ঠেকাতে বিক্ষোভকারীরা নৌকা উদ্দেশ্য করে পেট্রল বোমা ছুড়ে।পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আকাশে ফাঁকা গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এবিষয়ে রাজ্য সরকারের সচিব তিন মং সোই বলেন, “বিক্ষোভকারীরা ভেবেছিল, ওই ত্রাণসামগ্রী শুধু বাঙালিদের জন্য নেওয়া হচ্ছিল।”

রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী কয়েকশ বছর ধরে মিয়ানমারে বসবাস করে এলেও তাদেরকে নাগরিক মানতে নারাজ দেশটির সামরিক বাহিনী।আশির দশক থেকে তারা রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি’ বলে নিপীড়ন চালচ্ছে, যার ফলে অন্তত চার লাখ রোহিঙ্গা আগে বিভিন্ন সময় পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সরকারের দমন অভিযানে সমর্থন জানিয়ে রাখাইনে জাতীয়তাবাদীদের মিছিল। ছবি: রয়টার্স

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সরকারের দমন অভিযানে সমর্থন জানিয়ে রাখাইনে জাতীয়তাবাদীদের মিছিল। ছবি: রয়টার্স

সম্প্রতি উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নতুন করে দমন অভিযানে নামে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। নিপীড়নের মুখে টিকতে না পেরে প্রাণভয়ে আরও প্রায় সাড়ে চার লাখ রোহিঙ্গা সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকছে।

তারপরও অনেকেই এখনো তাদের ভিটেমাটি ছাড়েননি; নিপীড়নের ভয়ে তারা লুকিয়ে রয়েছেন।

যারা এখনো রাখাইনে রয়ে গেছেন, তাদের জন্যই ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব রেড ক্রস (আইসিআরসি) এসব ত্রাণ নিয়ে এসেছে। তারা খাবার ও পানির তীব্র সংকটে রয়েছে বলে মনে করছেন ত্রাণকর্মীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ওই সরকাররি কর্মকর্তা বলেন, বিক্ষোভকারীরা হাতে লাঠি ও লোহার পাইপ নিয়ে ত্রাণ বোঝাই করতে থাকার ওইসব নৌকার দিকে এগিয়ে যায়। তারা সেগুলোর পেট্রল বোমা ছুড়ে। পরে প্রায় ২০০ পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ফাঁকা গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

সেখানে কয়েকজন আহত হয় এবং আটজনকে পুলিশ আটক করে নিয়ে যায়।তবে ওই ঘটনায় ত্রাণকর্মীরা কেউ আহত হননি বলে আইসিআরসির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন।

মারিয়া সেসিলিয়া গোইন বলেন, একদল লোক নৌকার কাছ গিয়ে তারা করছে তা জানতে চায়। তখন ত্রাণকর্মীরা বলেন, তারা নিরপেক্ষভাবে সংস্থাটির জরুরি ত্রাণ সরবরাহের কাজ করছেন ।পরে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সামাল হয়।

এই বিক্ষোভ মিয়ানমারে বাড়তে থাকা সাম্প্রদায়িক সংঘাতের নজির, যা সহিংসতার শিকার দুর্গত রোহিঙ্গাদের কাছে জরুরি ত্রাণসামগ্রী পাঠানো কঠিন করে তুলেছে।

বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৪ অগাস্ট রাতে কয়েকটি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ক্যাম্পে হামলার পর দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে নতুন করে দমন অভিযানে নামে।

সেনাবাহিনীর চলমান অভিযানে গত প্রায় এক মাসে চার লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

এপার থেকে আগুন জ্বলতে দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু এলাকার গর্জনদিয়া, সারাপাড়া, বড়ডিল ও খোনাকারাপাড়া গ্রামে- ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

এপার থেকে আগুন জ্বলতে দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু এলাকার গর্জনদিয়া, সারাপাড়া, বড়ডিল ও খোনাকারাপাড়া গ্রামে- ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান

তারা বলছেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামগুলোতে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মানুষ মারছে। রোহিঙ্গা নারীদের ধর্ষণএবং গ্রামের পর গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এই দমন অভিযানকে ‘জাতিগত নির্মূলের’ চেষ্টা হিসেবে চিহ্নিত করেছে জাতিসংঘ।

রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি দেখতে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলোকে সেখানে যেতে দিচ্ছে না মিয়ানমার সরকার। এমনকি সেখানে আইসিআরসি ছাড়া অন্য কোনো সংস্থাকে ত্রাণ দিতেও বাধা দেওয়া হচ্ছে।

]]>
1397528 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/rohinga.jpg/ALTERNATES/w300/Rohinga.jpg 1397532 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/21/myanmar-rohingya.jpg/ALTERNATES/w300/MYANMAR-ROHINGYA.JPG রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সরকারের দমন অভিযানে সমর্থন জানিয়ে রাখাইনে জাতীয়তাবাদীদের মিছিল। ছবি: রয়টার্স 1393225 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/11/01_mayanmar-rohingya-village-fire_110917__0013.jpg/ALTERNATES/w300/01_Mayanmar+Rohingya+Village+Fire_110917__0013.jpg এপার থেকে আগুন জ্বলতে দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু এলাকার গর্জনদিয়া, সারাপাড়া, বড়ডিল ও খোনাকারাপাড়া গ্রামে- ছবি: মোস্তাফিজুর রহমান 1397556 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2017/09/21/myanmar-rohingya-bangladesh.jpg/ALTERNATES/w300/MYANMAR-ROHINGYA-BANGLADESH.JPG